Breaking News

রিভিউ হবেনা ভোটার তালিকা , ভোট ঘোষণার পর নিষিদ্ধ বাইক মিছিল : মুখ্য নির্বাচন কমিশনার

No voter list to be reviewed, no green police or civil volunteers to be used for voting, banned bike procession after the announcement of votes: Chief Election Commissioner

ভোটের কাজে ব্যবহার করা যাবেনা গ্রিন পুলিশ বা সিভিল ভলেন্টিয়ারকে

ইস্টার্ন টাইমস , কলকাতা : বৃহস্পতিবার তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় যে মন্তব্য করেছিলেন , ‘তা দুর্ভাগ্যজনক। কখনো এমন কথা আশা করা যায় না’ বলে জানালেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা। উল্লেখ্য , মুখ্য নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে দেখা করে পার্থ চট্টোপাধ্যায় অভিযোগ জানিয়েছিলেন, সীমান্তে বিএসএফের যারা দায়িত্বে আছেন তারা গ্রামে গ্রামে গিয়ে একটি বিশেষ দলকে সহায়তা করার জন্য ভয় দেখাচ্ছেন।

তারা বলছেন তোমরা যদি ভোট না দাও তাহলে কলকাতা বা জেলাশাসকও তোমাদের এখানে রাখতে পারবে না আমরাই সীমান্তে থাকব। তবে শুধু তৃণমূল নেতাই নন , পাশাপাশি রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের মন্তব্যকে ভিত্তিহীন বলে জানিয়েছেন মুখ‍্য নির্বাচন কমিশন সুনীল আরোরা।

দিলীপ ঘোষ বলেছিলেন , ‘রোহিঙ্গা-সহ বাংলাদেশের অনেক ভোটারের নাম ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। রাজ্যের বেশ কয়েকটি জায়গায় অস্বাভাবিক ভাবে বেড়েছে ভোটারের সংখ্যা, এর সঠিক কারণ খতিয়ে দেখা উচিত কমিশনের।

‘ মুখ্য নির্বাচন কমিশনার জানিয়ে দিয়েছেন ভোটার তালিকা আর পর্যালোচনা করা হবেনা।শুক্রবার ৩ দিনের রাজ্য সফরের শেষে সাংবাদিক সম্মেলন করেন সুনীল অরোরা।

এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্য নির্বাচন কমিশনার স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেন ,বিধানসভা নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলায় কোনও রকমের গাফিলতি বরদাস্ত করা হবে না।

ভোটপ্রক্রিয়ার কাজে লাগানো যাবে না গ্রিন পুলিশ বা সিভিল ভলেন্টিয়ারকেও। ভোটের দিনক্ষণ ঘোষিত হবার পর করা যাবে না বাইক মিছিলও। তিনি বলেন, ‘‘নির্বাচনের আগেই রাজ্যে চলে আসবে কেন্দ্রীয় বাহিনী। তবে কেন্দ্রের হাতে পর্যাপ্ত বাহিনী নেই। ফলে রাজ্য পুলিশের সঙ্গেই সমন্বয় সাধন করে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে দিয়ে ভোট প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। প্রতিটি বুথেই কমিশনের কড়া নজর থাকবে।

আইনশৃঙ্খলা নিয়ে কোনও রকম গাফিলতি বরদাস্ত করব না।’’

করোনার মতো অতিমারির আবহে বিধানসভা নির্বাচন। ফলে এক দিকে যেমন আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দিকে কড়া নজর রাখতে হচ্ছে, অন্য দিকে তেমনই নির্বাচনের সময় করোনার সংক্রমণ যাতে বৃদ্ধি না পায়, সে বিষয়টিও গুরুত্ব দিতে হচ্ছে। মুখ্য নির্বাচন কমিশনার জানান, বিহার নির্বাচনের উদাহরণ মাথায় রেখেই রাজ্যে ভোটপ্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

ভোটের সময় টাকার লেনদেনে কড়া নজর থাকবে কমিশনের। তা ছাড়া, ওই সময় রাজনৈতিক প্রভাব খাটানো বা শক্তি প্রদর্শনের প্রবণতার দিকেও লক্ষ রাখবে কমিশন।

রাজ্যের যে ভোটার তালিকা প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন, তাতে ৭ কোটি ৩৩ লক্ষ নাম রয়েছে। পাশাপাশি, এ রাজ্যে প্রায় ৭৮ হাজার বুথ রয়েছে। এর সঙ্গে আরও ২২ হাজার সহায়ক বুথ করা হচ্ছে।

ফলে বুথের মোট সংখ্যা বে়ড়ে দাঁড়াচ্ছে প্রায় ১ লক্ষ। বুথ কেন্দ্রগুলিতে যথেষ্ট বাহিনী মোতায়েন করা হবে।তবে ভোটের তিন মাস আগে কোন কেন্দ্রীয় বাহিনী আসবে না। নির্বাচন কমিশন স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর (এসএপি)-র মধ্যে দিয়ে কাজ করে। সে ভাবেই গোটা প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছে কমিশন।

Vinkmag ad

Eastern Times

Read Previous

ভারতীয় ক্রিকেট দলের সাম্প্রতিক জয় যুব সম্প্রদায়ের জন্য অনুপ্রেরণার বার্তা নিয়ে এসেছে

Read Next

নজিরবিহীনভাবে নেতাজি জন্মজয়ন্তীতে কলকাতায় প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রীর দুটি পৃথক কর্মসূচি

Leave a comment

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

easterntimes will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.