Breaking News

২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে ২০ শতাংশ স্কুল ফি মকুবের নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের

The Calcutta High Court has directed to waive 20 percent school fees in the 2019-20 academic year

ইস্টার্ন টাইমস ,কলকাতা: রাজ্যের সব বেসরকারি স্কুলের টিউশন ফি কমানোর নির্দেশ দিল মহামান্য কলকাতা হাইকোর্ট।মঙ্গলবার বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চের নির্দেশ অনুযায়ী, ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষে যে ফি আছে, তা ২০ শতাংশ কমাতে হবে ।

নন-অ্যাকাডমিক সমস্ত ফি মকুব করতে হবে। নির্দেশিকায় বলা হয়েছে বেসরকারি স্কুলগুলি টিউশন ফি কমানোর পাশাপাশি আর্থিকভাবে দুর্বল অভিবাবকদের সঙ্গে কথা বলে তাদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে স্কুল কর্তৃপক্ষকে ।এদিন আদালত নির্দেশ দিয়েছে, স্কুলগুলিকে তিন জনকে নিয়ে একটি কমিটিও করতে হবে এ বিষয়টি দেখার জন্য।

 

করোনা সংক্রমণের প্রতিরোধে লকডাউনের গোড়া থেকেই বেসরকারি স্কুলের ফি নিয়ে একাধিক বার অভিযোগ উঠেছে, ঘনিয়েছে প্রতিবাদ। বিভিন্ন স্কুলে এই নিয়ে প্রতিবাদ শুরু করেন অভিভাবকরা। প্রশ্ন তোলেন, স্কুল বন্ধ থাকা সত্ত্বেও কেন আনুষঙ্গিক সমস্ত ফি দিতে হবে, কেনই বা বাড়ানো হবে ফি।

অভিভাবকদের দাবি, ফি বাড়ানো চলবে না। বিগত চার মাস ধরে স্কুল বন্ধ তবু স্কুল কতৃর্পক্ষ ল্যাব, কম্পিউটার ক্লাস, লাইব্রেরি এমনকি বিদ্যুতের খরচও নিচ্ছেন। শুধু কলকাতায় নয়, জুন মাসে ফি-বৃদ্ধির বিজ্ঞপ্তিতে উত্তাল হয়ে ওঠে পশ্চিম বর্ধমানের আসানসোল শিল্পাঞ্চলও।

লকডাউন ধাপে ধাপে ওঠার পরে আনলক পর্ব চালু হতেই বিভিন্ন বেসরকারি ইংরেজি স্কুল থেকে নোটিস পাঠানো শুরু হয়েছে অভিভাবকদের।রাজ্য সরকারের নির্দেশ অগ্রাহ্য করে বিভিন্ন স্কুল ফি বাড়াতেই থাকে।শেষপর্যন্ত বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়ায়।

উল্লেখ্য , এর আগে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি সঞ্জীব বন্দোপাধ্যায় এবং মৌসুমী ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ বেসরকারি স্কুলকে আলাদা আলাদা কমিটি গঠন করে ফি সংক্রান্ত সমস্যা মেটানোর নির্দেশ দেন।কিন্তু তাতেও সমস্যার সমাধান না হওয়ায় ডিভিশন বেঞ্চ নির্দিষ্ট করে দিলো ফি মকুবের পরিমান।

Vinkmag ad

Eastern Times

Read Previous

পেলে কে নিজের জার্সি পাঠালেন সন্দেশ ঝিঙ্গান

Read Next

জিডিপি কমছে ১০.৩ শতাংশ! বিশ্ব ব্যাঙ্ক, রিজার্ভ ব্যাঙ্ককে ছাপিয়ে আশংকা আইএমএফের

Leave a comment

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

easterntimes will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.