Breaking News

তাবলিগী জামাত ইস্যুতে সরকারের হলফনামাকে প্রতারণাপূর্ণ এবং নির্লজ্জ আখ্যা দিলো ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

ইস্টার্ন টাইমস ,নতুন দিল্লি : তাবলিগী জামাত ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টে বড় ধাক্কা খেল কেন্দ্রীয় সরকার । তাবলিগী জামাত ইস্যুতে সংবাদমাধ্যমগুলির সাম্প্রদায়িক রং দেওয়ার অভিযোগে মামলার শুনানিতে কেন্দ্রের দাখিল করা হলফনামাকে প্রতারণাপূর্ণ এবং নির্লজ্জ আখ্যা দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদের বেঞ্চে বৃহস্পতিবার জমিয়তে উলেমা-এ-হিন্দের দায়ের করা পিটিশনের ভিত্তিতে শুনানি ছিল। মামলায় অভিযোগ, দেশের করোনা সংক্রমণ ছড়ানোর জন্য দিল্লির নিজামুদ্দিন মার্কাজে তাবলিগী জামাতের জমায়েতকে কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে ইচ্ছাকৃত ভাবে।

যাতে একে সাম্প্রদায়িক রং দেওয়া যায়। তাতে কেন্দ্রের দাখিল করা হলফনামা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন প্রধান বিচারপতি।উল্লেখ্য,ভারতে করোনা সংক্রমণের প্রাথমিক পর্বে ১মার্চ থেকে তাবলিগী জামাত-এর ধর্মীয় অনুষ্ঠান ছিল ২১দিনের।

দক্ষিণ দিল্লির হজরত নিজামুদ্দিনে এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশ নিতে দেশ-বিদেশ থেকে এসেছিলেন প্রায় ৮০০০-এর বেশি তবলিগী জামাত-এর সদস্য।১৩ই মার্চ দিল্লির রাজ্য সরকার করোনা সংক্রমণ রোধে সভা-সমাবেশ-ধর্মীয় জমায়েত নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। ২৯ মার্চ দিল্লির নিজামুদ্দিন মার্কাজ থেকে ২ হাজার ৩৬১ জনকে বার করে দিয়েছিল পুলিশ।

তখন দেশে করোনা সংক্রমণ সবে ছড়াতে শুরু করেছে। সে সময় দিল্লির সেই ঘটনাকে ঘিরে দেশ জুড়ে সমালোচনার ঝড় বয়ে যায়।

গত ৫ এপ্রিল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফেই জানিয়ে দেওয়া হয়, দেশের ৩০ শতাংশ করোনা সংক্রমণের সঙ্গে তাবলিগী জামাতের যোগসূত্র রয়েছে।

অবশ্য গত ৫ এপ্রিল সারা দেশে মোট করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা ছিল তিন হাজার ৩৭৪ জন। মৃত্যু হয়েছিল মোট ৭৭ জনের। জমিয়তে উলেমা ই হিন্দ-সহ কয়েকটি সংগঠনের অভিযোগ, করোনা সংক্রমণের সঙ্গে ওই ঘটনাকে জুড়ে ‘সাম্প্রদায়িক ঘৃণা’ ছড়াতে শুরু করে সংবাদমাধ্যমের একাংশ।

 Supreme Court of India calls government's affidavit on Tablighi Jamaat issue fraudulent and shameless

Supreme Court of India calls government’s affidavit on Tablighi Jamaat issue fraudulent and shameless

গত ৬ এপ্রিল জমিয়ত উলেমা-এ-হিন্দ সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করে তাবলিগী জামাত ইস্যুতে। তারপর ৭ আগস্ট কেন্দ্র হলফনামা জমা করে শীর্ষ আদালতে।এদিন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহেতাকে ভর্ৎসনা করে বলেন, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের এক জুনিয়র অফিসার হলফনামা তৈরি করেছেন।

তাতে অপ্রয়োজনীয় এবং অবাস্তব তত্ত্ব দেওয়া হয়েছে মিডিয়া রিপোর্টিং নিয়ে। বিরক্ত হয়ে সুপ্রিম কোর্ট এই মামলায় সচিব স্তরের কোনও আধিকারিককে দিয়ে হলফনামা জমা দিতে বলেছে। তাতে যেন মিডিয়া রিপোর্টিং নিয়ে কেন্দ্রের পদক্ষেপের বিস্তারিত বর্ণনা থাকে, নির্দেশ শীর্ষ আদালতের।

এদিন প্রধান বিচারপতির মন্তব্য, এইভাবে আদালতের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করা যায় না। জুনিয়ার অফিসারকে দিয়ে হলফনামা তৈরি করা হয়েছে। এটা প্রতারণামূলক এবং এতে মামলাকারীর বাজে মিডিয়া রিপোর্টিং নিয়ে উল্লেখই নেই। আপনাদের অমত থাকতেই পারে, কিন্তু কীভাবে বলতে পারেন যে ভুল তথ্য পেশ করেনি সংবাদমাধ্যম!

মন্ত্রকের সচিব যেন ঠিকঠাক হলফনামা পেশ করেন।জামাতের তরফে আইনজীবী দুষ্মন্ত দাভে জানিয়েছেন, কেন্দ্র তার হলফনামায় জানিয়েছে, যে মামলাকারী মনপ্রকাশের স্বাধীনতাকে কটাক্ষ করেছে।

তাতে সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্চের আরও দুই বিচারপতি এ এস বোপান্না এবং ভি রামাসুব্রহ্মণ্যম জানিয়েছেন, ওরাও যেমন স্বাধীনভাবে হলফনামা তৈরি করতে পারে যেমন মামলকারীরা স্বাধীনভাবে তর্ক করতে পারে। প্রসঙ্গত, গত ৬ এপ্রিল জমিয়ত উলেমা-এ-হিন্দ সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করে তাবলিগী জামাত ইস্যুতে। তারপর ৭ আগস্ট কেন্দ্র হলফনামা জমা করে শীর্ষ আদালতে।

Vinkmag ad

Eastern Times

Read Previous

পুলিশের জলকামান থেকে রাসায়নিক স্প্রে! কেন্দ্রকে নালিশ জানাবে বিজেপি

Read Next

সারদা মামলায় মুকুলের সঙ্গে মুখোমুখি জেরা চাইলেন কুনাল

Leave a comment

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

easterntimes will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.