Breaking News

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঘোষণা “দু’টি কোভিড ভ্যাকসিনের মাধ্যমে মানবজাতিকে রক্ষা করতে তৈরি”

Prime Minister Narendra Modi's announcement "ready to save mankind through two covid vaccines

ভারতের কাছে গুরুত্বপূর্ণ ভ্যাকসিন-কূটনীতিও

ইস্টার্ন টাইমস , নয়াদিল্লি : শনিবার ১৯তম প্রবাসী ভারত দিবস উপলক্ষে একটি ভার্চুয়াল সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দাবি, “এই কিছু দিন আগেও পিপিই কিট, মাস্ক, ভেন্টিলেটর-সহ টেস্টিং কিট বাইরে থেকে আমদানি করত ভারত। এখন ওই সামগ্রীর মধ্যে কয়েকটি আমরা এখন রপ্তানি করি।

এখন আমাদের দেশ আত্মনির্ভর।’’ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার কোভিশিল্ড, যা উৎপাদন করছে পুণের সেরাম ইনস্টিটিউট৷ আর দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি ভারত বায়োটেক ও ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চের উদ্যোগে তৈরি কোভ্যাকসিন সম্প্রতি ভারতে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের ছাড়পত্র পেয়েছে। এ ছাড়া, আমদাবাদের ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা জাইডাস-ক্যাডিলার ভ্যাকসিনেরও ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে।

সেই প্রসঙ্গেই মোদীর মন্তব্য, ‘‘আজ আমরা ভারতে তৈরি দু’টি কোভিড ভ্যাকসিনের মাধ্যমে মানবজাতিকে রক্ষা করতে তৈরি।’’

তবে প্রধানমন্ত্রী দুটি ভ্যাকসিনের মাধ্যমে মানবজাতিকে রক্ষার কথা বললেও সমস্যা হচ্ছে , দেশের মানুষকে আগে করোনা ভ্যাকসিন দেয়া হবে, নাকি টিকা পাঠানো হবে প্রতিবেশী দেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন বন্ধু দেশের কাছে, যাতে সেখানকার মানুষ একই সঙ্গে টিকা নিতে পারেন৷ এখনো পর্যন্ত সরকারিভাবে স্বাস্থ্য বা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে কিন্তু এই বিষয়ে কোনো স্পষ্ট নীতি ঘোষণা করা হয়নি৷ তবে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর গত বুধবার কলম্বোয় বলেছেন, ‘‘আমরা এখন কোভিড পরবর্তী সহযোগিতার দিকে তাকিয়ে৷ এখানে আমি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মনোভাবের কথা জানাতে চাই৷ তিনি বলেছেন, ভারত মনে করে, আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সহযোগিতা করা তার কর্তব্য৷’’

বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপ, মায়ানমারের মতো প্রতিবেশী দেশগুলি করোনার ভ্যাকসিনের জন্য ভারতের দিকে তাকিয়ে আছে৷ সাম্প্রতিক সময়ে নানা কারণে ভারতের সঙ্গে প্রতিবেশী দেশগুলির সম্পর্ক কিছুটা খারাপ হয়েছে বা সম্পর্কে টানাপোড়েন দেখা দিয়েছে৷ এই অবস্থায় ভ্যাকসিন-কূটনীতিকে হাতিয়ার করে আবার সেই সম্পর্ক পুনরুদ্ধার করার সুযোগ ভারতের সামনে এসে পড়েছে৷ আর তারই সদ্ব্যবহার করতে চাইছে মোদী সরকার৷ আর এই কারণেই ভ্যাকসিন-কূটনীতি ভীষণভাবে গুরুত্বপূর্ণ৷এ ক্ষেত্রে একটি ব্যালেন্সের খেলা দেখাতে হবে মোদী সরকারকে৷ কারণ, তাদের সামনে এখন দেশের ১৩৮ কোটি মানুষকে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা যতটা জরুরি, ততটাই প্রয়োজনীয় মানবিক কারণে ও কূটনীতির স্বার্থে প্রতিবেশীসহ বন্ধু দেশগুলির কাছে ভ্যাকসিন দ্রুত পৌঁছে দেওয়া৷

Vinkmag ad

Eastern Times

Read Previous

টুইটার ও ফেসবুক থেকে ডোনান্ড ট্রাম্পের নির্বাসন

Read Next

রাজ্যের সরকারি কর্মচারীদের পয়লা জানুয়ারি থেকে ৩% হারে মিলবে মহার্ঘ ভাতা

Leave a comment

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

easterntimes will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.