Breaking News

অর্ধসত্য বলে মানুষকে বিভ্রান্ত করতে চাইছেন প্রধানমন্ত্রী : মমতা বন্দোপাধ্যায়

PM wants to confuse people with half-truths: Mamata Banerjee

ইস্টার্ন টাইমস , নয়াদিল্লি: প্রধানমন্ত্রী কিসান নিধি প্রকল্পে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের ভূমিকা নিয়ে শুক্রবার ভার্চুয়াল কনফারেন্সে তোপ দেগেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রশ্ন তুলেছিলেন মুখ্যমন্ত্রীর মতাদর্শ নিয়েও। কিছুক্ষণের মধ্যেই মোদির প্রতিটি ইস্যু তুলে ধরে তার জবাব দিয়েছিলেন বর্ষীয়ান তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়।

তৃণমূলের বর্ষীয়ান সাংসদ সৌগত রায় প্রধানমন্ত্রীর অভিযোগের জবাবে বলেন, “গত ১০ বছরে বাংলায় কোনও কৃষক আন্দোলন দেখেছেন? এখানকার কৃষকদের রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে কোনও ক্ষোভ নেই। তাঁরা ভাল আছেন। রাজ্যে কৃষকদের জন্য বরাদ্দ বেড়েছে ৫ গুণ।”

একইসঙ্গে নয়া কৃষি আইন কতটা কৃষক স্বার্থবিরোধী, তা বোঝাতে গিয়ে তাঁর ব্যাখ্যা, এই আইন কার্যকর হলে ফসল ফলানোর আগেই দাম স্থির হয়ে যাবে। পুঁজিপতিরা নিজেদের ইচ্ছামতো দামে ফসল কিনে প্রচুর মুনাফা লুটবে। কেন্দ্র ঘুরপথে চুক্তিচাষের ব্যবস্থা করছে বলেও অভিযোগ তাঁর।

এর পর বিকেলে কেন্দ্রকে সরাসরি নিশানা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

মোদিকে তীব্র কটাক্ষ করে মমতা বলেন, ‘‌কৃষকদের সমস্যাগুলি সক্রিয়ভাবে সমাধানের চেষ্টা না করে প্রধানমন্ত্রী টেলিভিশনের মাধ্যমে ভাষণ দিয়ে তাঁদের সম্পর্কে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

জনসমক্ষে তিনি দাবি করেছেন, তাঁর পিএম কিসান যোজনার মাধ্যমে তিনি পশ্চিমবঙ্গের কৃষকদের সহায়তা করতে চান। আসলে অর্ধসত্য বলে মানুষকে উনি বিভ্রান্ত করতে চান ।’ কঠোর ভাষায় মোদিকে মমতার স্পষ্ট জবাব, ‘‌আসল সত্যিটা হল মোদি সরকার বাংলাকে সাহায্য করতে কিছুই করেনি। রাজ্যের বকেয়া ৮৫০০০ কোটি টাকাও এখনও দেয়নি ওরা, যার মধ্যে বকেয়া ৮০০০ কোটি টাকার জিএসটি আছে।’‌

মুখ্যমন্ত্রী জানান, কৃষক সমস্যা নিয়ে তিনি সম্প্রতি কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমরের সঙ্গেও আলোচনা করেছিলেন। কেন্দ্রই রাজনৈতিক স্বার্থে রাজ্যের সঙ্গে অসহোগিতা করছে।

কেন্দ্র–রাজ্য যৌথ উদ্যোগে রাজ্যে বহু প্রকল্প তৈরি হয়েছে এবং হচ্ছে। মমতার অভিযোগ, ‘‌একটা প্রকল্প নিয়ে প্রশ্ন তোলা অবান্তর। কেন্দ্রের ভূমিকা যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোর পরিপন্থী।’‌ সৌগত রায় বলেছেন , “মোদীরা টাকা পাঠিয়ে সরাসরি রাজনৈতিক সুবিধা নেবেন, এটা কেন রাজ্য সরকার মেনে নেবে? তাই বাংলার কৃষকরা যদি কিসান সম্মাননিধির টাকা না পায়, তার জন্য সম্পূর্ণ দায়ী কেন্দ্রীয় সরকার ও মোদী নিজে।

কেন্দ্রের জেদের জন্যই টাকা পাচ্ছেন না কৃষকরা।” জাতীয় কৃষি ক্ষেত্রে কেন্দ্রের ব্যর্থতার কথা উল্লেখ করে দমদমের সাংসদ বলেন, “মহারাষ্ট্র, কর্নাটকে কৃষকরা ব্যাপক হারে আত্মহত্যা করছেন। মোদী তার সমাধান করেননি। মূল বিষয় থেকে সরে যাচ্ছেন মোদী। মোদী সরকার কৃষকদের সঙ্গে দীর্ঘ কথাবার্তা চালিয়ে আন্দোলন ভেঙে দিতে চাইছেন।”

Vinkmag ad

Eastern Times

Read Previous

বাম-কংগ্রেস ভোটের জোট : ইতিহাস ও ভূগোল

Read Next

কেমন যাবে আপনার আজকের দিনটি : দৈনিক রাশিফল

Leave a comment

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

easterntimes will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.