Breaking News

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙচুরে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলার আর্জি

Petition filed against Khaleda Zia and Tareq Rahman for vandalizing Bangabandhu's sculpture

ইস্টার্ন টাইমস বিশেষ সংবাদদাতা , ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর: বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠতা রাষ্ট্রপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য ভাঙচুর ও ভাস্কর্যবিরোধী প্রচারণায় উসকানি দেওয়ার অভিযোগে বিরোধী নেত্রী ও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া, বিএনপির বর্তমান প্রধান তারেক রহমান ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধে একটি মামলার আবেদন হয়েছে ঢাকার আদালতে।

জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী বুধবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে দ-বিধির ৫০০/৫০৬/৪২৭/১০৯ ধারায় আবেদনটি করেন। সেখানে মানহানি ও হুমকির অভিযোগ আনা হয়েছে।

ঢাকার মহানগর হাকিম সত্যব্রত সিকদার বাদীর জবানবন্দি শুনে বিষয়টি বৃহস্পতিবার আদেশের জন্য রেখেছেন।

মামলার আর্জিতে হেফাজত ইসলামের আমির জুনাইদ আহমেদ বাবুনগরী, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মুহাম্মদ মামুনুল হক ও ইসলামী আন্দোলনের নেতা সৈয়দ ফয়জুল করিমকেও আসামি করা হয়েছে।

সেখানে অভিযোগ করা হয়েছে, ‘স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব নস্যাৎ করে বাংলাদেশকে পাকিস্তান বানানো ও জাতির পিতার চিহ্ন মুছে ফেলার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে স্বাধীনতাবিরোধী পাকিস্তানিদের দালালচক্র বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্ব ইসলামিক জঙ্গিবাদী গোষ্ঠী গু-াবাহিনী দিয়ে ৪ ডিসেম্বর রাতে কুষ্টিয়ায় জাতির পিতার ভাস্কর্যের একটি হাত ভেঙে দেয় এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যায়ের মধুর ভাস্কর্যের একটি কান ভেঙে দেয়’।

আরজিতে বাদী বলেন, “ন্যায়বিচারের স্বার্থে দ-বিধির ৫০০/৫০৬/১০৯ ও ৪২৭ ধারায় তাদের আসামি করে, অপরাধ আমলে নিয়ে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করছি।“

আর ২৭ নভেম্বর চট্টগ্রাম হাটহাজারীতে হেফাজতের আমির বাবুনগরী সরকারের প্রতি ‘ভাস্কর্য নির্মাণ বন্ধ না করলে আরও একটি শাপলা চত্বর ঘটানোর’ হুমকি দেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

একই দিন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সামনে ইসলামিক আন্দোলনের জনসভায় ফয়জুল হকও ‘ভাস্কর্য ভেঙে বুড়িগঙ্গায় ফেলার ও শাপলা চত্বরে জমায়েতের’ হুমকি দেন বলে আর্জিতে অভিযোগ করা হয়েছে।

Vinkmag ad

Eastern Times

Read Previous

বিশ্বের ক্ষমতাধর নারীর তালিকায় শেখ হাসিনা

Read Next

বাংলাদেশে একদলীয় স্বেচ্ছাচারী শাসনে খুন ও গুম হচ্ছে হাজার হাজার মানুষ : তারেক রহমান

Leave a comment

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

easterntimes will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.