Breaking News

মঙ্গলবারের ভারত বনধের সমর্থনে বিরোধীরা একজোট

Opposition party called for a boycott of the assembly on Tuesday farmer protest

ইস্টার্ন টাইমস , নয়াদিল্লি: কৃষক আন্দোলনের সমর্থনে একজোট বিরোধীরা। কৃষি বিল প্রত্যাহারের দাবিতে কৃষকদের ডাকা মঙ্গলবারের ভারত বন্‌ধকে সমর্থন করেছে বিভিন্ন প্রায় সব বিরোধী রাজনৈতিক দল এবং কর্মী সংগঠন।

মঙ্গলবারের ভারত বনধ সফল করার জন্য দেশের মানুষের কাছে আবেদন জানিয়ে রবিবার এক যৌথ বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী ,এনসিপি নেতা শারদ পাওয়ার , ডিএমকে সভাপতি এম কে স্ট্যালিন,আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব , সমাজবাদী পার্টির সভাপতি অখিলেশ যাদব ,জম্মু-কাশ্মীরের ৬দলের বিরোধী জোট পিপুলস এলায়েন্স ফর গুপকার ডিক্লারেশনের পক্ষে ফারুক আবদুল্লা ,সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি ,সিপিআই সম্পাদক ডি রাজা, সিপিআই এম এল’র সাধারণ সম্পাদক দীপঙ্কর ভট্টাচার্য , ফরোয়ার্ড ব্লকের দেবব্রত বিশ্বাস , আরএসপি’র মনোজ ভট্টাচার্য।

টিআরএস সুপ্রিমো তথা তেলঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কেসিআর প্রেস বিজ্ঞপ্তি দিয়ে বলেছেন তাঁদের পূর্ণ সমর্থন আছে ৮ ডিসেম্বরের বন্‌ধে। কেসিআর–এর মেয়ে কে কবিতাও রবিবার বলেন, টিআরএস সংসদে ওই বিলের বিরোধিতা করে এসেছে এবং বরাবর করবে। মঙ্গলবারের বন্‌ধকে তাঁরা সমর্থন করছেন। আপ নেতা তথা দিল্লির মন্ত্রী গোপাল রাই রবিবার টুইট করে লিখেছেন, তাঁদের দল মঙ্গলবারের ভারত বন্‌ধকে সমর্থন করছে।

কৃষিপ্রধান দেশ ভারতবর্ষের সবাইকে এই বন্‌ধ সমর্থনের আহ্বান জানান তিনি।

তৃণমূল কংগ্রেসও কৃষকদের সমর্থন জানিয়েছে। এদিন সকালে টুইটারে কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা অবিলম্বে কৃষি বিল প্রত্যাহার করতে বলে প্রধানমন্ত্রীকে পরামর্শ দিয়েছেন, যে তিনি যেন কৃষকদের কাছে ক্ষমা চান।

রবিবার সাংসদ প্রেম সিং চন্দুমাজরার নেতৃত্বে শিরোমণি অকালি দলের প্রতিনিধিরা মুম্বাই-এ দেখা করেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে। দুই প্রাক্তন এনডিএ শরিকদের মধ্যে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রেম সিং বলেন, উদ্ধব কৃষক আন্দোলনের প্রতিটি কর্মসূচিকে সমর্থনের আশ্বাস দিয়েছেন।

দক্ষিণী সুপার স্টার তথা মাক্কাল নিধি মায়াম প্রধান কমল হাসানও কৃষকদের সমর্থনের কথা জানিয়েছেন। চলতি প্রতিবাদ কর্মসূচিতে তাঁর দলও অংশীদার হচ্ছে বলে ঘোষণা করেছেন কমল হাসান।

মাক্কাল নিধি মায়ামের তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, হরিয়ানা-দিল্লি সীমানায় বিক্ষোভকারী কৃষকদের কাছে দলের ১০ সদস্য যাবেন। দাবি জানাবেন কেন্দ্রীয় তিন কৃষি আইন প্রত্যাহারের।

পাশাপাশি , ভারতীয় পর্যটক পরিবহনকারী সংগঠন বা আইটিটিএ–র সভাপতি সতীশ শেখাওয়াত বলেছেন , কৃষি এবং পরিবহন এক বাবার দুই ছেলের মত, তাই ৫১টি সংগঠন ওই বন্‌ধকে সমর্থন করবে।

দিল্লি পণ্য পরিবহন সংগঠন বা ডিজিটিএ–র সভাপতি পরমিত সিং গোল্ডি বলেন, তাঁদের ব্যবসার শিকড় কৃষকরা, তাই তাঁদের আন্দোলনকে তাঁরা সমর্থন করবেনই।

ভারতীয় কিষাণ সংগঠনের সদস্য হরবিন্দর সিং লাখোয়াল বলেছেন, ভারত বন্‌ধের দিন জাতীয় সড়ক এবং টোল প্লাজাও অবরোধ করা হবে।

৯ ডিসেম্বর চতুর্থ বৈঠকের আগে কেন্দ্রীয় সরকারের উপর চাপ বাড়াতেই ভারত বনধের ডাক দিয়েছে আন্দোলনকারী কৃষক সংগঠনগুলো।

কৃষক সংগঠনগুলির কাছে আরও সময় চেয়েছে কেন্দ্র। যাতে বিস্তারিত প্রস্তাব কৃষকদের সামনে পেশ করা যায়, তার জন্য আবার আগামী ৯ ডিসেম্বর বৈঠকে বসবে দুই পক্ষ।

নিজেদের দাবিতে অনড় রয়েছেন কৃষক নেতারা।অন্যদিকে , দেশের সব রাজ্যের রাজধানী ও জেলাতে কেন্দ্রীয় কৃষি আইনের বিরোধী কৃষকদের ডাকা বনধের সমর্থনে সভা-সমাবেশেরও নির্দেশ দিয়েছে কংগ্রেস ।

Vinkmag ad

Eastern Times

Read Previous

‘বিপ্লব হাটাও, বিজেপি বাঁচাও’ : প্রথম সফরেই হতবাক প্রভারি

Read Next

মৌলবাদীদের আক্রোশ থেকে বঙ্গবন্ধুর ভাষ্কর্য রক্ষায় বাংলাদেশের হাইকোর্টে রিট

Leave a comment

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

easterntimes will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.