Breaking News

লালকেল্লায় তেরঙ্গার অপমান খুবই দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা : সংসদে বললেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ

Lalkella is a very unfortunate incident: President Ramnath Kobind said in Parliament

আশিস গুপ্ত , নয়াদিল্লি: ১৬ টি বিরোধীদলের সাংসদদের অনুপস্থিতিতে প্রজাতন্ত্র দিবসে লালকেল্লায় হিংসার ঘটনা নিয়ে মুখ খুললেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। শুক্রবার সংসদের বাজেট অধিবেশনের শুরুতে ২৬ জানুয়ারির ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন রাষ্ট্রপতি ।

সংসদের দুটি সদনের যৌথ অধিবেশনে দেওয়া সেদিনের ঘটনার নিন্দা করে রাষ্ট্রপতি বলেন, “প্রজাতন্ত্র দিবসে কৃষকরা ট্র্যাক্টর র‌্যালি করেছেন।

সেই আন্দোলনে ব্যাপক অস্থিরতা তৈরি হয়েছিল।সেদিন লালকেল্লায় তেরঙ্গার অপমান খুবই দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা। ভারতের সংবিধান আমাদের বাকস্বাধীনতার অধিকার দিয়েছে। কিন্তু এই সংবিধানই সবার জন্য সমান আইন-কানুনের কথা বলেছে। সবাইকে আইন মানার শিক্ষা দিয়েছে।”

উল্লেখ্য, কৃষক বিক্ষোভের সমর্থনে এবং সরকারের দমননীতির প্রতিবাদে এদিন রাষ্ট্রপতির ভাষণ বয়কট করে ১৬টি বিরোধী রাজনৈতিক দল।

রাষ্ট্রপতি তাঁর ভাষণে কেন্দ্রীয় সরকারের যাবতীয় কাজকর্মের সাফল্যের খতিয়ান তুলে ধরেন। বলেন, “জনধন অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে দেশের গরিব মহিলাদের ৩১ হাজার কোটি টাকা দিয়েছে সরকার, ১৪ কোটি গ্যাস সিলিন্ডার বিতরণ করা হয়েছে বিনামূল্যে, প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ যোজনায় ৮ মাস ৫ কেজি করে মাথাপিছু খাদ্য প্রদান করা হয়েছে।”

তিনি এদিন বলেন, “ভারতের জন্য অত্যন্ত গর্বের বিষয় যে, বিশ্বের সর্ববৃহৎ টিকাকরণ কর্মসূচি হচ্ছে দেশে। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারত বিভিন্ন দেশকে ভ্যাকসিনের ডোজ পাঠিয়ে সাহায্য করেছে।”

কৃষক বিক্ষোভ নিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, “নতুন ৩টি আইনের ফলে দেশের ১০ কোটিরও বেশি মানুষ উপকৃত হবেন। এই তিনটি কৃষি আইনের মাধ্যমে কৃষকদের অনেক বেশি ক্ষমতা প্রদান করেছে সরকার।

পুরনো আইনের চেয়েও বেশি স্বাধিকার পাবেন কৃষকরা।” তিনি বলেন, ‘‘কৃষকদের রোজগার নিশ্চিত করতে পিএম কিষান সম্মান নিধি প্রকল্প চালু করেছে সরকার।

কৃষি খরচের দেড় গুণ ন্যূনতম সহাযক মূল্য (এমএসপি) দেওয়া হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী সুফল বিকাশ যোজনার সুবিধাও পেয়েছেন কৃষকরা।’’

করোনা সংকট ও অর্থনীতি প্রসঙ্গে রামনাথ কোবিন্দ বলেন , “সরকারের সময়োপযোগী সিদ্ধান্তে দেশে করোনার সংক্রমণ রুখে দিয়ে ফের ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে অর্থনীতি।

করোনাকালে ক্ষুদ্র, মাঝারি ও অতিক্ষুদ্র শিল্পে আর্থিক প্যাকেজ, গরিবকল্যাণ যোজনার মতো একাধিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে সারা বিশ্বকে পথ দেখিয়ে নজির সৃষ্টি করেছে ভারত সরকার। করোনার টিকাদান কর্মসূচিও সফল ভাবে চলছে দেশে।” রাষ্ট্রপতি তাঁর ভাষণে চীনের নাম না নিয়ে বলেছেন , প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় বিদেশি হানা রুখে দিয়েছে ভারত। সরকার দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সম্পূর্ণ প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। অতিরিক্ত বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে সীমান্তে।”

পাশাপাশি কাশ্মীরে অনুচ্ছেদ ৩৭০ বিলোপ এবং সমস্ত বাধা বিপত্তি পেরিয়ে অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণের উল্লেখ করেন রাষ্ট্রপতি।

এদিন অধিবেশনের শুরুতে সংবাদমাধ্যমের মাধ্যমে সমস্ত সংসদীয় দলকে বার্তা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, “সংসদে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোচনা হোক, বিতর্ক হোক।

সংসদে যাতে শান্তিপূর্ণ ভাবে সব বিষয়ে আলোচনা হয় তার জন্য সবাইকে সচেষ্ট হতে হবে।”

তিনি বলেন , “আগামী দশক ভারতের অগ্রগতির জন্য তাৎপর্যপূর্ণ। জাতির স্বাধীনতার জন্য যারা লড়াই করেছিলেন সেই মহামান্যদের দৃষ্টি এবং স্বপ্নগুলি আমাদের মনে রাখতে হবে।

প্রতিটি বিষয় নিয়ে সংসদে বিশদ বিতর্ক ও আলোচনা হওয়া উচিত।” ১ ফেব্রুয়ারি সংসদে ২০২১-২২-র সাধারণ বাজেট পেশ করবেন ভারতের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন।

Vinkmag ad

Eastern Times

Read Previous

দেশের দৈনিক করোনা সংক্রমণ আবার বেড়ে গেলো

Read Next

দলবদলের প্রস্তুতি ! বিধায়ক পদে ইস্তফা দিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের রাজীব বন্দোপাধ্যায়

Leave a comment

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

easterntimes will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.