Breaking News

গো-পাচারের নামে ভারত-বাংলা সীমান্তে বিএসএফের অকথ্য নির্যাতন, অভিযোগ মানবাধিকার আয়োগে

ইস্টার্ন টাইমস, নয়াদিল্লি, ৩১ অক্টোবরঃ ভারত-বাংলা সীমান্তে গবাদি পশু পাচারের নামে স্থানীয় গ্রামবাসীদের ওপর বিএসএফের অত্যাচার ক্রমশ বেড়েই চলেছে। শণিবার এমনই এক চাঞ্চল্যকর অভিযোগ দায়ের হয়েছে জাতীয় মানবাধিকার আয়োগে।

ঘটনা চলতি সপ্তাহের। গরু পাচারের সন্দেহে মুর্সিদাবাদের রাণিতলা পুলিস স্টেশনের অন্তর্গত সীমান্তের পাইকমারি-নির্মলচর গ্রামের জুজু রহমান (৩৫) এবং তোজাম্মেল রহমানের (৩০) ওপরত বিএসএফ জওয়ানদের অকথ্য নির্যাতনের। কিন্তু গরু পাচারের সঙ্গে তারা জড়িত থাকার কোনো প্রমাণ বিএসএফের হাতে নেই বলেই জাতীয় মানবাধিকার আয়োগে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

মানবাধিকার সুরক্ষা মঞ্চের সচিব তথা প্রোগ্রাম এগেনস্ট কাস্টডিয়াল টরচার অ্যন্ড ইমপিউনিটির জাতীয় আহ্বায়ক কৃতি রায় এদিন মানবাধিকার আয়োগের কাছে এনিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগে এমনও বলা হয়েছে, কেবল অকথ্য নির্যাতনই নয়, গো-পাচারের সঙ্গে জড়িত থাকার কোনো প্রমাণ হাতে নাথাকায় বিএসএফের তরফে নির্যাতনের শিকার দুই যুবককে রীতিমতন ভয় দেখানো হচ্ছে যে তারা যাতে সংশ্লিষ্ট কোনো জায়গায় এনিয়ে কোনো অভিযোগ দাখিল নাকরে। অন্যথা এর ফল ভায়বহ হবে। অভিযোগ নির্মলচর সীমান্তের দায়িত্বে থকা বিএসএফের ৩৫ নম্বর ব্যাটেলিয়নের ‘বি’ কোম্পানির বিরুদ্ধে।

তথাপিও সাহস সঞ্চয় করে জুজু এবং তোজাম্মেল দুজনেই স্থানীয় রাণিতলা পুলস স্টেশনে বিএসএফের বিরুদ্ধে গত বুধবার এফআইআর দাখিল করতে চেয়েছিলেন। তবে পুলিস তাদের সেই অভিযোগ লিখীত আকারে গ্রহণ করতে অস্বীকার করে বলে মানবাধিকার আয়োগকে জানিয়েছেন কৃতি রায়।

এখানেই শেষ নয় সমস্ত ঘটনার। গুরুতর আহত হয়ে যখন জুজু এবং তোজাম্মেলকে স্থানীয় নাশিরপুর প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে আনা হয় তখন তাদের শারীরক পরীক্ষা করা হলেও আঘাতের কারণ, কত দিন পুরোনো সেই আঘাত তার কোনো উল্লেখই করা হয়নি মেডিকেল রিপোর্টে।

সংবিধানের একাধিক ধারা উলংঘা করা হয়েছে বলে রায় এদিন জাতীয় মানবাধিকার আয়োগের কাছে অভিযোগ এনেছেন।

সেই সঙ্গে সমস্ত ঘটনার উচিৎ তদন্তেরও দাবী করা হয়েছে। বিএসএফের এক্তিয়ার কেবল সীমান্ত সংক্রান্ত বিষয়েই সীমাবদ্ধ থাকুক তারো দাবী জানানো হয়েছে। অযথা সীমান্তবর্তী গ্রামগুলোতে ঢুকে বিভিন্ন অজুহাতে গ্রামবাসীদের ওপর অত্যাচারের সীমা ছাড়িয়ে গেছে বলেও মানবাধিকার আয়োগকে সজাগ করে দেওয়া হেয়েছে রায়ের অভিযোগনামায়।

Vinkmag ad

Eastern Times

Read Previous

ডার্বি নিয়ে চিন্তিত নন হাবাস

Read Next

ডার্বি তে চাপে মোহনবাগান , বলছেন ইস্টবেঙ্গল কোচ ফাউলার

Leave a comment

You have successfully subscribed to the newsletter

There was an error while trying to send your request. Please try again.

easterntimes will use the information you provide on this form to be in touch with you and to provide updates and marketing.